Main Menu

প্রধানমন্ত্রীর ভালোবাসায় সিক্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ – বাংলারদর্পন

নিজস্ব প্রতিবেদক: পদ্মা সেতু নিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ওনার মাথায় যে ঘিলু আছে, তাতে আছে চুরি করা, টাকা বানানো, এতিমের টাকা খাওয়া, মানুষ পোড়ানো, মানুষ মারা। বৃহস্পতিবার গণভবন মাঠে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে আয়োজিত শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সরকার প্রধান আরো বলেন, আজকে যখন আমরা নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু করছি, তখন খালেদা জিয়া বক্তৃতা দেয়; ‘ওই পদ্মাসেতু জোড়াতালি দিয়ে করা হয়েছে। কেউ পদ্মাসেতুতে উঠবেন না।’ এখন একটা সেতু নির্মাণ হচ্ছে, সেটা নাকি জোড়াতালি দিয়ে! হ্যাঁ, একদিকে ঠিক, যেহেতু একেকটি পার্ট (অংশ) তৈরি করে তারপর একেকটা করে বসায়।

তিনি বলেন, এখন যার এই টুকু জ্ঞান নেই! একটা জিনিস নির্মাণ করতে হলে কিভাবে, কি পদ্ধতিতে করতে হয়; যার মাথায় ওই টুকু ঘিলু নাই। ওনার মাথায় যে ঘিলু আছে, সেটা কিসের? চুরি করা, টাকা বানানো, এতিমের টাকা খাওয়া, মানুষ পোড়ানো, মানুষ মারা এটাই তো। একটা সেতু বানানোর মতো; ওই ক্ষমতা তার নাই।

খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে শেখ হাসিনা আরো বলেন, উনি (খালেদা জিয়া) বুঝিয়ে দিয়েছেন ওনার কথার মধ্যে দিয়ে। নইলে যার মধ্যে এতটুকু সেন্স আছে, এতটুকু বুদ্ধি আছে বা যার এতটুকু জ্ঞান আছে এবং সে যদি সজ্ঞানে থাকে, নিশ্চয়ই এ কথা বলবে না।

৭৫ ও ২০০১ পরবর্তী সময়ে বিএনপি আমলে শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেশ পিছিয়ে গেছে মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, সরকারে এসেছি নিজের ভাগ্য গড়তে নয়। জনগণের ভাগ্য গড়তে।

খালেদা জিয়ার দুই ছেলে তারেক রহমান ও কোকো রহমানের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, একটা ব্যাপারে তারা পারদর্শী, মানিলন্ডারিং করা। অলরেডি খালেদা জিয়ার বড় ছেলে মানিলন্ডারিংয়ে……..। এটা আমরা বলছি না। মানিলন্ডারিং, এটা আমেরিকার ফেডারেল কোর্ট সেখানে ধরা পড়েছে যে সে ঘুষ খেয়েছে, মানিলন্ডারিং করেছে। যার জন্য তার বিচারে সাজা হয়েছে ৭ বছর কারাদণ্ড, ২০ কোটি টাকা জরিমানা। আরেক ছেলে, তার টাকা ধরা পড়েছে সিঙ্গাপুরে। সেই টাকা আমরা ফেরত নিয়ে এসেছি। কাজেই তার দুই ছেলে রত্ম। তারা দুই কাজে পারদর্শী।

খালেদা জিয়াকে উদ্দেশে করে শেখ হাসিনা বলেন, উনিও কম যান না, এতিমের টাকা মেরে দিয়ে বেশ দিব্যি, সামান্য এতিম তাদের জন্য আনা পয়সা তাও মেরে দেয়। তারা দেশের মানুষকে কি দেবে।

তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়া মানুষ পোড়ানোতে পারদর্শী। মানুষের ক্ষতি করতে পারে। মানুষের উপকার করতে পারে না। মানুষের ভালো করতে পারে না। কারণ তাদের হাত দিয়ে মানুষের ভালো আসে না।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ছাত্রলীগ সভপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন। এর আগে সংগঠনে নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল আটটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল প্রাঙ্গণে কেক কাটা হয়। ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। এর আগে সকাল ছয়টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ছয়টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শনিবার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র্যালি করবে সংগঠনটি।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *