Main Menu

ফুলগাজীর খালেদা জিয়া সড়কের বেহাল দশা -বাংলার দর্পন ডটকম

 

জহিরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর :

ফুলগাজি  উপজেলা সদরের ১ কিলোমিটার দক্ষিনে  ফেনী – পরশুরাম সড়কের গাইন বাড়ি নামক স্থান থেকে শুরু করে ফুলগাজি সদর, দরবারপুর ও মুন্সিরহাট ইউনিয়নের ভিতর দিয়ে করইয়া – কালিকাপুর হয়ে বদরপুর ভারত সিমান্তবর্তি রাস্তা পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এ সড়কের  ব্যাপ্তি ।

অপরদিকে এ সড়কের করইয়া হয়ে অন্য আর একটি সড়ক গিয়ে নোয়াপুর শেখ নুরুল্লা সড়ক হয়ে মুন্সিরহাট পর্যন্ত ফেনী পরশুরাম সড়কে গিয়ে সংযুক্ত হয়েছে।

এদিকে এ খালেদা জিয়া সড়কের আওতাভূক্ত ২ টি উচ্চ বিদ্যালয়, ৩ টি মাদ্রাসা, ৪ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২ টি কমিনিউটি ক্লিনিক, ৩ টি বাজার, ১ টি  বিজিবি ক্যাম্পের মানুষ যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম এ সড়কটি। গত বি এন পি সরকারে আমলে এ সড়কটি পাকাকরন হওয়ার পর থেকে বর্তমান সরকারের আমলে ২ বার নাম মাত্র মেরামত করা হয়েছে ও প্রায় ৬ বৎসর আগে। মেরামতের পরের বছরের বন্যায় আবার এ সড়কের পিচ উঠে গিয়ে খানাখন্দকের সৃষ্টি হয় । মাঝে মধ্যে নির্বাচনের আগে প্রর্থিরা জনপ্রতিনিধিত্ব পাওয়ার জন্য হালকা ইটা বালি দিয়ে মেরামত করে নির্বাচনের পরে পাকা করে দিবে বলে প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরি দিয়ে  নির্বাচন শেষে দেয়া প্রতিশ্রুতির আর খবর নাই পরে থাকে আগের মতই । গত বর্ষার আগে এলাকার ভুক্তভোগিরা একাদিকবার উপজেলা সদরে গিয়ে ধর্না দেয়ার পর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম তাঁর নিজ তহবিল থেকে  স্থানিয় যুবক আলমগিরের মাধ্যমে কিছু ইটা সুরকি বালি দিয়ে কিছুটা চলা – চলের সুবিধা করে দেয় এবং এ জন প্রতিনিধি এ সড়কটি মেরামত করার ব্যেপারে স্থানিয় প্রকৌশল বিভাগের মাধ্যমে ১ কোটি ২৫ লক্ষ টাকার একটি প্রকল্প তৈরি করে বিভিন্ন তদবিরের মাধ্যমে  প্রশাসনের একাদিক টেবিল ডিঙ্গিয়ে কুমিল্লায় টেন্ডারের টেবিল পর্যন্ত পৌছনো হলে সেখানে কোন অজ্ঞাত কারনে আবার উছিষ্ট কাগজের ঝুড়িতে পরে যায় খালেদাজিয়া সড়কের দরপত্রের ফাইল। এ ভাবেই চলছে তো চলছে ফাইলের অবস্থা এ দিকে কাহিল হয়ে পড়ছে ফাইলের সংস্লিষ্টরা ।

গত কয়েকদিনের অবিরাম বর্ষনে মুহুরি নদির বাঁধ ভেঙ্গে বন্যায় নিয়ে যায় ইট পাথর পিচ  আর রেখে যায় সেই ই  আইয়ুবের আমলের পাায়ে হাটার রাস্তা ।

অত্র এলাকার জনগনের শেষ বারের মত প্রশাসনের কাছে দাবি সরেজমিনে এসে তার অবস্থার পরিপেক্ষিতে এ সড়কটি  মেরামত করে চলা চলের সুযোগ করে দেযা ।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *